সাইফুল ইসলাম রিশাত এর সফলতা

সঙ্গীত শিল্পীর জগতে ২০১৮ সালে পা রেখেছেন মোঃ সাইফুল ইসলাম রিশাত। বর্তমানে তার নিজের একটা ব্রান্ড রয়েছে, এছাড়া প্রফেশনাল একজন সংগীতশিল্পী হিসেবে প্রতিনিয়ত তিনি মানুষের কাছে পরিচিতি লাভ করেছেন। তার সংগীতশিল্পীর জগতে আশার দিনটি ছিল ২০১৮ সাল। বর্তমানে তিনি একজন সংগীতশিল্পী হিসেবে প্রধান পেয়েছেন লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে। সংগীতশিল্পী এটা একটা পেশা হিসেবে তার কাছে প্রভৃতি পেয়েছে। তিনি তার পেশা হিসেবে সংগীত জগতে প্রিয় করে নিয়েছেন। সঙ্গীতজগত চেনো তার প্রিয় একটি কার্যকলাপ এবং পেশা।

যদিও তার শুরুর দিকটা অনেক বেশি কঠিন ছিল সবার মতো এতে বেশি সহজ ছিল না তার জন্য তিনি সহজেই সফল সংগীত শিল্পী হতে পারেননি। শুরুতে তার অর্থ সমস্যাসহ পরিবারের সাপোর্ট না থাকায় দীর্ঘদিন সংগীতশিল্পী থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে যাচ্ছিলেন। অতঃপর এক সময় নিজেকে সান্ত্বনা দিতে লাগলেন এবং নিজেই বুঝতে পারলেন যে আমার পেশা এটাই হওয়া উচিত আমি যেভাবেই পারি আমাকে সাকসেস হতে হবে। একটা সময় তিনি তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রম দিয়ে আক্রান্ত চেষ্টা দিয়ে মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন এখন তিন লক্ষ লক্ষ মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন।

সাইফুল ইসলাম রিশাত বলেন, একজন সংগীতশিল্পী হিসেবে আমার নিজের পরিচয়টা মানুষের কাছে পৌঁছোতে আমি দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করেছি। মানুষ যাতে আমাকে সংগীতশিল্পী হিসেবে চিনতে পারে সেজন্য আমি অনেক বেশি পরিশ্রম করেছি। হয়তো আমার মতো এই এত বেশি পরিশ্রম কিংবা এত বেশি যুদ্ধ করে কেউ সংগীতশিল্পীর জগতে আসতে চাইবেন না তবে এখানে এমন একটা সম্মান পাওয়া যায় যেটা হয়তো অন্য কোন প্লাটফর্মে পাওয়ার সুযোগ হয় না। যারা সংগীতশিল্পী হিসেবে পরিচিতি পেতে চান তাদের জন্য সুন্দরতম মাধ্যম হচ্ছে মানুষের মন জয় করে নেয়া।

শুধু সঙ্গীত শিল্পী হিসেবেই নিজেকে থামিয়ে রাখেননি তিনি। তিনি সঙ্গীতশিল্পী চর্চার পাশাপাশি অনলাইন থেকেও উপার্জন করার বেশ কয়েকটি মাধ্যম সম্পর্কে অবগত এবং সাকসেস হয়েছেন। তিনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গুগল এডসেন্স সহ অনলাইনের বিভিন্ন প্লাটফর্মে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছেন। অর্থাৎ তিনি সংগীত শিল্পীর বাইরে ও বিভিন্ন কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন। সাইফুল ইসলাম রিশাত বলেন, মানুষের জীবনে একটা কাজ শিখে সেটা থেকে বড় হতে পারে না। কিংবা সেটা থেকে লাইফে সাকসেস করতে পারে না। সবার উচিত জীবনে ভালো কিছু করতে হলে, ভালো একটা পর্যায়ে পৌঁছতে হলে, নিজের অবস্থানকে ধরে রাখতে হলে বেশ কয়েকটা কাজের পরিচর্যা করা এবং কাজগুলোতে সাকসেস হওয়া।

সাইফুল ইসলাম রিশাত এর জীবনী!

সাইফুল ইসলাম রিশাত
সাইফুল ইসলাম রিশাত

নিজের অবস্থানকে ধরে রাখতে সাইফুল ইসলাম রিশাত অক্লান্ত পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে নিজেকে সুন্দর এবং সফল একটা জায়গাতে প্রেজেন্ট করতে পেরেছেন। তিনি চান নিজের জায়গাটাকে ধরে রাখতে।

তিনি বলেন, সবার জীবনে একটা লক্ষ্য থাকে তেমনি আমার জীবনে লক্ষ্য ছিল আমি মানুষকে আমার গানগুলো শুনবো আমার মিউজিক গুলোর মাধ্যমে মানুষকে আমি বিনোদন দিব, অতঃপর আমি এখন সফল হয়েছি আমার কাজ গুলোতে। প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষের ভালোবাসা আমাকে জড়িয়ে রেখেছে। আমি সবার প্রতি অনেক অনেক কৃতজ্ঞ, হয়তো সবার সাপোর্ট না পেলে আমি নিজের অবস্থানে কোনভাবেই আসতে পারতাম না। আমাকে এত বেশি সাপোর্ট ভালোবাসার জন্য হয়তো সবার কাছে আমি ঋণী হয়ে থাকবো।

অনলাইনের বিভিন্ন প্লাটফর্মে পাওয়া যাচ্ছে তার বিভিন্ন সঙ্গীত এবং মিউজিক। এছাড়া তার অফিসিয়াল ফেসবুক এবং ইউটিউব চ্যানেলে পাওয়া যাচ্ছে তার নিজের তৈরি করা মিউজিক গুলো। স্পটিফাই, অ্যাপেল মিউজিক, অ্যামাজন মিউজিক, ইউটিউব মিউজিক, সাউন্ড ক্লাউড সহ বেশ কয়েকটি পপুলার প্লাটফর্মে তার মিউজিকগুলো প্রকাশিত পাচ্ছে।

সাইফুল ইসলাম রিশাত‘র বর্তমান অবস্থান ঢাকা। অবশ্য তিনি ছোটবেলা থেকে লেখাপড়ার কার্যক্রম শেষ করেছেন বরিশালে। তার লেখাপড়ার পাশাপাশি এখন বর্তমানে একজন সংগীতশিল্পী এবং ওয়েব ডেভেলপার হিসেবে অনেক বেশি পপুলারিটি অর্জন করেছেন।

তিনি বলেন, সবার উচিৎ চেষ্টা করা যাতে একদিন সফলতার নিকট পৌঁছানো যায়। বর্তমানে অনেক তরুণ-তরুণী রয়েছেন যারা অল্প কিছুদিন চেষ্টা করেই তিনি নিজেকে ব্যর্থ বলে প্রমাণিত করেন কিংবা নিজেকে ব্যর্থ বলে সরে পড়েন কিন্তু তাদের উচিত দীর্ঘ দিন চেষ্টা করা এবং সফল হব এমন একটা আশা নিজের মনে রাখা। আমরা জানি যে, পৃথিবীতে যারা ধনী ব্যক্তি রয়েছেন তারা সহজেই সফল কিংবা ধনী হতে পারেননি তাদের ধনী হওয়ার পিছনে রয়েছে রহস্যজনক ঘটনা অক্লান্ত পরিশ্রম। পরিশ্রম ছাড়া কেউ ধনী কিংবা সফল হতে পারেননি। হয়তো কারো পরিশ্রম ছোট এবং কারো পরিশ্রম বড় তবে তাদের পরিশ্রম ছিল এটা সত্য। তাই বর্তমান তরুণ তরুণীদের মাঝে যে অলসতা বিরাজমান রয়েছে সেটি উৎখাত করার লক্ষে আমাদের লম্বা চেষ্টা আবশ্যক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.