লম্বা হওয়ার উপায় ও ব্যায়াম

লম্বা হওয়ার উপায় ও ব্যায়াম – দৈনন্দিন জীবনে সবার ইচ্ছে সবার আকাঙ্ক্ষা নিজেকে স্মার্ট করে মানুষের সামনে প্রেজেন্ট করা। অনেকে আবার খাটো হওয়াতে নিজেকে মানুষের সামনে পের্সেন্ট করতে লজ্জাবোধ করে।

আমরা প্রত্যেকটা মানুষ আলাদা আলাদা ভাবে সৃষ্টি হয়েছে কারণ চেহারার সাথে কারো চেহারার মিল পাওয়া যায় না তেমন একটা। তবে চেহারা দেখতে অনেকটা একরকম এমন মানুষ অনেক পাওয়া যায় তবে সব কিছুই মিল থাকেনা।

আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব লম্বা হওয়ার উপায় ও ব্যায়াম কিভাবে করতে হয় সে সমস্ত বিষয় গুলো নিয়ে। তাহলে চলুন আর অপেক্ষা কেন-

লম্বা হওয়ার উপায় ও ব্যায়াম

মানুষ কোন ওষুধ দ্বারা লম্বা হতে পারে না যদি আপনাকে কেউ বলে থাকে যে ওষুধ খেয়ে আপনি লম্বা হয়ে যাবেন তাহলে সেটা সম্পূর্ণ ভুল তথ্য।

ওষুধের মাধ্যমে কখনো লম্বা হওয়া সম্ভব না। আবার এদিকে দেখে থাকবেন হরলিক্স কমপ্লেন সহ বিভিন্ন ভিটামিনযুক্ত খাবার সংক্রান্ত খাওয়ার ফলে মানুষের মনের মধ্যে একটা প্রবণতা তৈরি হয় যে, লম্বা হচ্ছে শক্তি ফিরে পাচ্ছে। এটা কেবলমাত্র বাচ্চাদের ক্ষেত্রে অনেকটা কার্যকর হতে পারে ‌‌‌।

বয়স্ক কিংবা মাজারি বয়সের যারা আছেন তাদের জন্য এটি কার্যকর না। একটা সময় চলে আসেন এ সময় তার পরে মানুষ আর লম্বা হয় না তার স্বাস্থ্য আর ভালো হয় না সেই সময়টা দিলে সে যদি আপনি লম্বা হওয়ার চেষ্টা করেন তাহলে সেটা পুরো ব্যর্থ হবে।

লম্বা হওয়ার জন্য আপনি নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারেন এটা আপনার শরীর সতেজ রাখবে এবং আপনার শরীরের কোষগুলো সতেজ রাখার ফলে আপনার শরীর খুলতে থাকবে এই এতে করে আস্তে আস্তে আপনার নম্বর একটা প্রবণতা সৃষ্টি হতে পারে।

ব্যায়াম করে লম্বা হওয়ার প্রবণতা কেবলমাত্র একটা বয়সের মধ্যে নির্ধারিত রয়েছে। ১২-২৫ বছর পর্যন্ত এটি কিছুটা কার্যকর হতে পারে তবে এ বয়স পেরিয়ে গেলে ব্যায়াম করে লম্বা হওয়া সম্ভব হয় না।

তবে নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে আপনার শরীর সতেজ থাকবে মন হালকা থাকবে শরীরে কষ্ট অনুভব হবে না অলসতা আপনাকে ঘুরতে পারবে না।

এছাড়া হারবাল জাতীয় বিভিন্ন ওষুধ রয়েছে যেগুলো শরীরের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর যা গ্রহণ করার জন্য কখনোই পরামর্শ দিয়ে থাকবো না এবং সেগুলো কখনোই গ্রহণ করবেন না এতে করে আপনার শরীর দিনে দিনে ভেঙে পড়বে এবং মৃত্যুর আশঙ্কা ঘিরে আসবে।

লম্বা হওয়ার জন্য ব্যায়াম কিভাবে?

আপনার লক্ষ্য যদি থাকে লম্বা হওয়া সেক্ষেত্রে আপনার ব্যায়াম এর ধরন হবে পুশ আপ এবং ঝুলে ব্যায়াম করা।

আপনার যদি ব্যায়াম করার কোন সেন্টার না থাকে আশেপাশে সেক্ষেত্রে আপনি নিজেই তৈরি করে। রলড দ্বারা তৈরি করে দুটির ঋণ এবং খুব শক্ত পোক্ত ভাবে সেটিকে গাছের সাথে ঝোলানো এবং দুটোকে পাশাপাশি রেখে সে দুটো ধরে আপ ডাউন করা।

প্রতিনিয়ত চেষ্টা করবেন যাতে করে আপনার ব্যায়ামগুলো বৃদ্ধি হয়, অর্থাৎ আজকে যদি আপনি ১০ টি আপডাউন দিতে পারেন তাহলে কালকে চেষ্টা করবেন আরো কিছু বাড়িয়ে দেয়ার এভাবে প্রতিনিয়ত বাড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করবেন এতে করে আপনার শরীর সতেজ থাকবে এবং কোষগুলোর ফলে লম্বা হওয়ার একটা সম্ভাবনা থাকবে।

পুশ আপ ব্যায়াম করতে পারেন এতে করে আপনার শরীরের মধ্যে যে জন রয়েছে সেগুলো সতেজ থাকবে এবং সেগুলোর সাথে থাকার ফলে নতুন করে শক্তি যোগাতে সহযোগিতা করবে।

ঔষধালয় এর মাধ্যমে কখনো লম্বা হওয়া সম্ভব না এটি কেবলমাত্র মানুষকে ভুল বুঝনা এবং প্রতারিত করা। তাই কখনো তাদের ফাঁদে পড়বেন না এবং এতে ধরনের সিস্টেম গুলো কে মেনে নিবেন না।

জিম সেন্টারে কখন যাবেন?

মূলত শহরে যারা বসবাস করে তারা জিম সেন্টারে গিয়ে থাকেন সন্ধ্যার পরে কিন্তু এখানে সত্যিকার অর্থে ব্যায়াম করার লক্ষে জিম সেন্টারে যাওয়া উচিত সকাল ৫-৬ টার মধ্যে। দীর্ঘ সময় শরীর জ্যাম থাকার ফলে ঘুম থেকে ওঠার পরে যদি ব্যায়াম করা হয় তখন শরীরের কোষগুলো ধীরে ধীরে শক্ত পোক্ত হতে থাকে এবং এগুলো সতেজ হতে থাকে।

সন্ধ্যার পরে জিম সেন্টার যাওয়ার ফলে শরীরের ব্যায়াম কতটা কমপ্লিটলি হয় না। ব্যায়াম করার উদ্দেশ্য থাকলে সকালে জিম সেন্টারে যাওয়ার চেষ্টা করুন এবং এতে আপনার শরীরের ব্যায়াম কার্যকারিতা হবে।

তবে হ্যাঁ সন্ধ্যার পরে গেলে সেটাও ব্যায়াম হয় কিন্তু সেটা সকালের মতো এতটা বেশি কার্যকারিতা ‌‌ হয়না। কার্যকারী ব্যায়াম হতে হলে আপনাকে সকাল-সকাল জিম সেন্টারে যেতে হবে এবং ব্যায়াম করার জন্য অংশগ্রহণ করতে হবে।

সতর্কতা জেনে নিন

লম্বা হওয়ার প্রবণতা সবার মধ্যে থাকে না যারা অতিরিক্ত লম্বা তারা এটি পছন্দ করেনা তবে যারা একদমই কাটুন তাদের ক্ষেত্রে এটি খুবই বেদনাদায়ক তারা চায় লম্বা হতে লম্বা চেষ্টা করে।

এক্ষেত্রে হারবাল অথবা আয়ুর্বেদিক ঔষধালয় এর পরামর্শ না নিয়ে ব্যায়ামের মাধ্যমে শরীরকে সতেজ এবং লম্বা করতে সহযোগিতা করুন।

ঔষধের একশন যতক্ষণ থাকবে ততক্ষণ অর্থ একটি কাজ করতে পারে কিন্তু একসঙ্গে চলে যাওয়ার পরে এর বিপরীতে কাজ করা শুরু করবে তাই কখনো ঔষধের মাধ্যমে নিজেকে লম্বা করার চেষ্টা করবেন না।

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।  আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.