মুকেশ আম্বানির সেই বাড়ির কিছু অজানা তথ্য

ভারতের সবচেয়ে দামি বাড়িটি অবস্থিত মুম্বায়ের আল্টা মাউন্ড রোডে। আর বাড়িটির মালিক হচ্ছেন পৃথিবীর মাঝে ৬ষ্ট ধনী মুকেশ আম্বানি। বাড়িটি তৈরি করতে খরচ হয়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকারো বেশি। আটলান্টিক সাগরের একটি মনোরম দ্বিপের নাম অনুসারে বাড়িটির নাম করন করা হয়েছে এন্টিলা।

মুকেশ আম্বানি যখন এই বাড়িটি তৈরি করেন তখন বিশ্ব জুড়ে হৈ চৈ শুরু হয়ে যায়। কেননা যে স্থানে এই বাড়িটি নির্মিত হয়েছে সেখানে নূন্যতম দেড় লাখ টাকা স্কয়ার ফিটে ফ্লাট বিক্রি হয়। অন্য দিকে এন্টিলা নামের বাড়িটি নির্মিত হয়েছে চার লক্ষ্য স্কয়ার ফিটের উপর। চার লক্ষ্য স্কয়ার ফিটের মূল্য টাকার অংকে কত বিশাল তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

বাড়িটি মোট সাতাশ তলা হলেও একেকটি ফ্লোর দুই তলার সমান উঁচু। আর বাড়িটির মোট উচ্চতা ৫৭০ ফুট। এই উচ্চতায় ৬০ তলা বাড়ি তৈরি করা সম্ভব। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হল, এই বাড়ির প্রতিটি ফ্লোর আলাদা আলাদা ডিজাইনে তৈরি করা হয়েছে। তাই একটা ফ্লোরের সাথে আরেকটা ফ্লোরের কোনো মিল নেয়। এন্টিলা নামের এই বাড়িটিতে গাড়ি রাখার জন্য রয়েছে ৬ টি তলা। মোট ১৬৮ টি গাড়ি সেখানে রাখা যায়। বাড়িটি এমন ভাবেই ডিজাইন করা হয়েছে যে, ৬ তলা থেকে গাড়িগুলা নামতে মার ১ মিনিট সময় লাগে।

মুম্বায়ের গরমের সাথে টক্কর দিতে নিজের বাড়ির একটি তলায় স্নো রুম বানিয়ে ফেলেছেন মুকেশ। এখানে গেলে মনে হবে আপনি মেরু অঞ্চলে অবস্থান করছেন। বাইরে গরম লাগলেও ভিতরে শীতল অনুভব হয়। এন্টিলাতে মোট ৯ টি লিফট রয়েছে। এই লিফট গুলা খুব দ্রুপ গতিতে উঠা নামা করে। বাড়িটিতে রয়েছে এক বিশাল শৈলি মন্দির ঘর। সেখানে পৃথিবীর সবচেয়ে দামি দেব দেবির মূর্তি এনে স্থাপন করা হয়েছে। তাছাড়া এই বাড়িতে বিনোদনের কোনো অভাব নেই।

১১ তলায় আছে ৫০ সিটের একটি সিনেমা থিয়েটার। ১০ তলায় রয়েছে জিম , হেলথ স্পা অনেক গুলো সুইমিং ফুল , ডান্স স্টুডিও ও অন্যান্য বিনোদনের ব্যাবস্থা। এছাড়া অতিথীদের জন্য রয়েছে বিশেষ সুইটস, সেলুন এবং আইসক্রিম পার্লার। বাড়ির একেবারে ছাদে রয়েছে ৩ টি হেলিপেড বা হেলিকাপ্টার রাখার জায়গা। এখান থেকে মুকেশ প্রতিদিন হেলিকাপ্টারে চড়ে অফিসে যান এবং দিন শেষে হেলিকাপ্টারে চড়ে অফিস থেকে ফেরেন। ফলে তাকে কখনো দীর্ঘ সময় জ্যামে আটকে থাকতে হয় না। এত বর বাড়ি রক্ষনাবেক্ষন করার জন্য রয়েছে ৬০০ জন কর্মচারি। তারা সকলে উচ্চ শিক্ষিত এবং তাদের বেতনো লক্ষাধীক টাকা। এই বাড়িটি ডিজাইন করেছেন আমেরিকার শিখাগো শহরের বিখ্যাত স্থপতি। এতটায় মজবুত করে বাড়িটি তৈরি করা হয়েছে যে রিক্টার স্কেলে ৮ মাত্রায় ভূমিকম্প হলেও কিছুই হবে না বাড়িটির। অন্য কোনো ভাবেও ক্ষতিগ্রস্থ হবার সম্ভাবনাও ক্ষিন। তাই এই বাড়ির সদস্যরা সবসময় নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.